দায় এড়াতে দ্রুত সেই নেত্রীকে বহিষ্কার করলো ছাত্রলীগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুফিয়া কামাল হলে কোটা সংস্কার আন্দোলনে অংশগ্রহণকারী এক ছাত্রীর পায়ের রগ কেটে দেয়ার পর হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ইশরাত জাহান এশাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে ছাত্রলীগ। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে তাৎক্ষণিক এক বিবৃতিতে এ সিদ্ধান্ত জানায় সংগঠনটি।

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ ও সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলেন, ‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরি সিদ্ধান্ত মোতাবেক জানানো যাচ্ছে যে, ইশরাত জাহান এশা (সভাপতি, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, কবি সুফিয়া কামাল হল শাখা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়) কে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের দায়ে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ খেকে বহিষ্কার করা হলো।’

উল্লেখ্য, সুফিয়া কামাল হলের একাধিক আবাসিক শিক্ষার্থী টোয়েন্টিফোর লাইভ নিউজ পেপারকে জানান, সন্ধ্যায় আজকের মতো আন্দোলন শেষে হলে ফিরে সবাই বিশ্রাম নিচ্ছিলো। এরপর রাত গভীর হলে আনুমানিক সাড়ে ১২টার দিকে মারধর ও চিৎকারের শব্দ পাওয়া যায়। এরপর ছাত্রলীগের সভাপতি ইশরাত জাহান এশার রুমে রক্তের ছোপছোপ দাগ পাওয়া যায়।

ছাত্রলীগ নেত্রীর রুমের দরজা ভেঙ্গে মুর্শিদা নামের এক ছাত্রীকে রক্তাক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। মুর্শিদা বোটানি ডিপার্টমেন্টের ফাইনাল ইয়ারের শিক্ষার্থী। তার পায়ের রগ কেটে দিয়েছে ছাত্রলীগ নেত্রীরা। মুর্শিদা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসাধীন। এছাড়াও কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনে অংশ নেয়া কমপক্ষে ২০ জন মেয়েকে চুলের মুঠি ধরে মারধর করেছে ছাত্রলীগ নেত্রীরা।

এই ঘটনার পর আন্দোলনে ফুঁসছে সাধারণ ছাত্রীরা। সুফিয়া কামাল হল ছাত্রলীগের সভাপতি ইশরাত জাহান এশাকেও পিটুনি দেয়ার খবর পাওয়া গেছে। আর সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক পলাতক। পরিস্থিতি সামাল দিতে সুফিয়া কামাল হলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর টিম ও আইন শৃঙ্খলাবাহিনী পৌছেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর একেএম গোলাম রব্বানী ছাত্রীদের শান্ত হতে বললেও সাধারণ শিক্ষার্থীরা শুনছেন না, তারা নানা স্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছে। গতকাল রাতেও ঢাবির বিভিন্ন হলে আন্দোলনকারী ছেলেদের পিটিয়েছিল ছাত্রলীগ কর্মীরা।

আপডেট: ছাত্রলীগের হল কমিটি থেকে বহিষ্কারের পর অভিযুক্ত এশাকে হল থেকে বহিস্কার করেছে ঢাবি প্রক্টর। ছাত্রী নির্যাতনের প্রতিবাদে আগামীকাল সকাল থেকে আন্দোলনে যাবার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ঢাবির অন্যান্য ছাত্রী হল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *