‘মাটির ময়না’র কারিগরের জন্মদিন আজ

ভিন্ন ধারার চলচ্চিত্র নির্মাতা তারেক মাসুদের জন্মদিন আজ (৬ ডিসেম্বর)। ১৯৫৬ সালের আজকেই এই দিনে পৃথিবীতে আসেন তারেক মাসুদ।

তারেক মাসুদের জন্ম ১৯৫৬ সালের ৬ ডিসেম্বর ফরিদপুরে। তাঁর শিক্ষা জীবন শুরু হয় স্থানীয় একটি মাদ্রাসা থেকে। এরপর ভর্তি হন ঢাকার লালবাগের একটি মাদ্রাসায়। সেখান থেকেই পরে মৌলানা পাস করেন তিনি। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের সময় তাঁর মাদ্রাসা শিক্ষার সমাপ্তি ঘটে। পরবর্তীতে ফরিদপুরের ভাঙ্গা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি, নটর ডেম কলেজ থেকে এইচএসসি এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে স্নাতক সম্পন্ন করেন।

ঢাক বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন চলচ্চিত্রের প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠেন তারেক মাসুদ। ১৯৮২ সালে বাংলাদেশ ফিল্ম আর্কাইভ থেকে ফিল্ম অ্যাপ্রিসিয়েশন কোর্স শেষ করে প্রামাণ্যচিত্র নির্মাণ শুরু করেন তিনি। প্রায় ২০ বছর এ কাজের সঙ্গে জড়িত থাকার পর ঢুকে পড়েন ছবি নির্মাণের কাজে। ২০০২ সালে মুক্তি পায় তাঁর নির্মিত প্রথম ছবি ‘মাটির ময়না’, যা ২০০২ সালে কান চলচ্চিত্র উৎসবে আন্তর্জাতিক সমালোচক পুরস্কার এনে দেয়। তাঁর উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্রের মধ্যে ‘আদম সুরত’, ‘মুক্তির গান’, ‘মাটির ময়না’, ‘অন্তর্যাত্রা’, ‘রানওয়ে’ অন্যতম।

চলচ্চিত্রে আধুনিক ভাষা ও সমকালীন বিষয়াবলি জোরালোভাবে উপস্থাপনের মধ্য দিয়ে তিনি হয়ে উঠেছিলেন ঢাকাই চলচ্চিত্রের বিকল্পধারার প্রবাদপুরুষ। নিজের নির্মিত ছবিকে তিনি দর্শকের কাছে পৌঁছে দিতে হেঁটে গেছেন বহুদূর। বিভিন্ন অঞ্চল, বিশ্ববিদ্যালয়ে চলচ্চিত্র প্রদর্শনীর কৌশল তিনিই প্রতিষ্ঠিত করে গেছেন।

২০১১ সালে ‘কাগজের ফুল’ শিরোনামে একটি চলচ্চিত্রের শুটিংয়ের কাজে তারেক মাসুদ তাঁর সহকর্মীদের নিয়ে পাবনার ইছামতী নদীর তীরে যান। শুটিংয়ের লোকেশন ঠিক করে ওই বছরের ১৩ আগস্ট দুপুরে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন তাঁরা। পথে মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি বাসের সঙ্গে তাঁদের বহনকারী মাইক্রোবাসটির মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে তারেক মাসুদ ও তাঁর দীর্ঘদিনের সহকর্মী বিশিষ্ট চিত্রগ্রাহক মিশুক মুনীরসহ আরও তিনজন দুর্ঘটনাস্থলেই মারা যান।

বরেণ্য এই নির্মাতার জন্মদিনে বিশেষ সম্মান জানিয়েছে টেক জায়ান্ট গুগল। গুগল খুললেই দেখা মেলে তারেক মাসুদের অনবদ্য চলচ্চিত্র ‘মাটির ময়না’র প্রতিকৃতি। মাটির তৈরি ময়নাকে আলিঙ্গন করছে একটি হাত। এই দৃশ্য শুধু বাংলাদেশ নয়, গোটা বিশ্বের গুগল ব্যবহারকারীরা দেখছেন।

গুগলের এমন সম্মাননায় মুগ্ধ তারেক মাসুদের স্ত্রী ক্যাথরিন মাসুদ। তিনি বলেন, গুগল তারেক মাসুদকে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে, এটা আমার জন্য আনন্দের। তারেক ছিলেন বাংলাদেশের অগ্রগামী নির্মাতাদের একজন এবং নতুন প্রজন্মের জন্য অনুপ্রেরণা। তিনি বাংলাদেশের জন্য ছবি তৈরি করলেও তার ছবিগুলো পুরো পৃথিবীর কথা বলে।’

গুণী এই নির্মাতার জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাচ্ছে ‘বাংলা ইনসাইডার’ পরিবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *